কুড়িগ্রামে খাদ্যের দাবিতে গাছের গুঁড়ি ফেলে মহাসড়ক অবরোধ : ইউএনওর গাড়িতে হামলা
Published : Sunday, 10 May, 2020 at 12:00 AM, Update: 09.05.2020 9:54:30 PM
স্টাফ রির্পোটার, কুড়িগ্রাম, দিনকাল
কুড়িগ্রামে খাদ্যের দাবিতে গাছের গুঁড়ি ফেলে মহাসড়ক অবরোধ : ইউএনওর গাড়িতে হামলাকুড়িগ্রাম সদরের কাঁঠালবাড়ি চৌরাস্তায় খাদ্যের দাবিতে গাছের গুঁড়ি ফেলে কুড়িগ্রাম-রংপুর মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে স্থানীয়রা। গতকাল শনিবার সকাল ৯টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত প্রায় সাড়ে ৪ ঘন্টা ধরে বিক্ষোভে ৩ থেকে ৪ শতাধিক নারী-পুরুষ অংশগ্রহণ করে। এ সময় রাস্তার দু পাশে সকল ধরনের যানচলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ও বিক্ষোভকারীদের বক্তব্য জানতে দুপুর ১২টার দিকে কুড়িগ্রাম সদরের ভারপ্রাপ্ত ইউএনও ময়নুল ইসলাম ও কাঁঠালবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান রেদওয়ানুল হক দুলাল ঘটনাস্থলে যান। এ সময় কথোপকথনের এক পর্যায়ে বিক্ষোভকারীরা তাদের ওপর চড়াও হয়। পুলিশ তাদেরকে গাড়িতে সরিয়ে নিলে গাড়ির ওপর ইট-পাটকেল নিক্ষেপ শুরু করে। এতে ইউএনওর গাড়ির পিছন অংশ ভাঙচুর হয়। সরকারি গাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছে। কাঁঠালবাড়ি ইউনিয়নের ১, ২ ও ৩ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত ওয়ার্ড সদস্য মর্জিনা বেগম ও বিক্ষোভকারী মমিন, বেলাল ও আনোয়ার অভিযোগ করেন, ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ৪/৫ দফা তাদের আইডি কার্ডের ফটোকপি নেয়া হলেও এখন পর্যন্ত তারা কোনো ত্রাণ সহায়তা পাননি। এ কারণেই তারা ইউপি চেয়ারম্যান ও প্রশাসনের ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করেন। এছাড়াও তারা ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতা ও স্বজনপ্রীতির অভিযোগ তোলেন। কোনো বিষয় নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদে গেলে চেয়ারম্যান তাদের সাথে অসদাচরণ করেন।
কাঁঠালবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান রেদওয়ানুল হক দুলাল তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, একটি দুষ্ট চক্র সরকারকে বিব্রত করতে এ বিক্ষোভ নাটক সাজিয়েছে। ইউএনও এবং আমার ওপর হামলার নেতৃত্বদানকারী বাঁধন, আতাউর, দুলালসহ অন্যরা উপজেলা চেয়ারম্যানের ক্যাডার।
কুড়িগ্রাম সদরের ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ময়নুল ইসলাম জানান, অবরোধের বিষয়টি জানার পর জনগণের সাথে কথা বলতে গেলে আমার ওপর চড়াও হয়ে গাড়িতে হামলা করে। এতে গাড়ীর পিছনের গ্লাস ভেঙ্গে যায়।
কুড়িগ্রাম সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মাহফুজার রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, সরকারি কাজে বাধা ও সরকারি সম্পত্তি বিনষ্টেরও ঘটনা ঘটেছে। এ পর্যন্ত মামলা হয়নি। ইউএনও মহোদয় যেভাবে সহযোগিতা চাইবেন, পুলিশ সেভাবে সহযোগিতা করবে। বর্তমানে ওই এলাকা শান্ত রয়েছে।






প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
25094 জন