২৪ ঘন্টায় নতুন করে আরও ১৮২ জন আক্রান্ত : মৃত্যু ৫
Published : Tuesday, 14 April, 2020 at 12:00 AM
দিনকাল রিপোর্ট
দেশে নতুন করে আরও ১৮২ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। সব মিলিয়ে দেশে শনাক্ত হওয়া রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ৮০৩ জনে। গতকাল সোমবার করোনা ভাইরাস নিয়ে অনলাইনে স্বাস্থ্য অধিদফতরের নিয়মিত স্বাস্থ্য বুলেটিনে এ তথ্য জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তিনি জানান, গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৫ জন। সব মিলিয়ে মৃত্যু হয়েছে মোট ৩৯ জনের। নতুন করে তিনজন সুস্থ হয়ে ফিরেছেন। সব মিলিয়ে সুস্থ হয়েছেন ৪২ জন। এর আগে গত রোববার নিয়মিত অনলাইন ব্র্রিফিংয়ে আইইডিসিআর একদিনে ১৩৯ জন করোনা রোগী শনাক্তের কথা জানিয়েছিল। গতকাল পর্যন্ত মোট মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ৩৪। বাংলাদেশে ৮ মার্চ প্রথম করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়। এরপর ধাপে ধাপে বাড়তে থাকে শনাক্ত রোগী। গেল ৯ এপ্রিল ২৪ ঘন্টায় দেশে শতাধিক করোনা সংক্রমিত রোগী শনাক্তের কথা জানায় সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর)। এরপর থেকে শনাক্তের সংখ্যা কিছুটা কমলেও বাড়ে মৃত্যুর সংখ্যা। এদিকে যুক্তরাষ্ট্রে কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত হয়ে আরও ৯ বাংলাদেশিসহ একদিনে দেড় হাজারেরও বেশি মানুষ মারা গেছেন। এ নিয়ে দেশটিতে করোনায় ১৩১ জন বাংলাদেশিসহ মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২২ হাজার ১০৫ জনে দাঁড়ালো। আক্রান্ত হয়েছেন ৫ লাখ ৬০ হাজারের বেশি মানুষ। যুক্তরাষ্ট্রের বেশ কয়েকটি অঙ্গরাজ্যে কোভিড উনিশে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা কিছুটা কমলেও নিউইয়র্কে যেন কোনোভাবেই থামছে না মৃত্যুর মিছিল। রোববারও (১২ এপ্রিল) বেশ কয়েকজন বাংলাদেশি মারা গেছেন। এর মধ্যে ভার্জিনিয়ায় মারা গেছেন এক বাংলাদেশি। নিউইয়র্কের বাইরেও বিভিন্নস্থান হটস্পট হয়ে উঠেছে করোনা ভাইরাসের।
এছাড়া স্পেনে করোনায় একদিনে ৬০৩ জন মারা গেছেন। আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ১ লাখ ৬৬ হাজার। এদের মধ্যে ১২৭ জন বাংলাদেশি। প্রতিবেশী পর্তুগালে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫০৪। আক্রান্ত হয়েছেন ৮ বাংলাদেশি। সংক্রমণরোধে হোম কোয়ারেন্টাইনের মেয়াদ বাড়তে থাকায় নানা সঙ্কটে আছেন দু দেশের প্রবাসী বাংলাদেশিরা।
এদিকে প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত সারা বিশ্বে সাড়ে ১৮ লাখেরও বেশি করোনা রোগী শনাক্তের খবর পাওয়া গেছে। মারা গেছেন ১ লাখ ১৪ হাজারের বেশি।
দেশে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের (কভিড-১৯) কমিউনিটি ট্রান্সমিশন শুরু হয়ে গেছে জানিয়ে সবাইকে ঘরে থাকার আহ্বান জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তিনি বলেন, ইতিমধ্যেই কমিউনিটি সংক্রমণ হয়ে গেছে। এটি ছড়িয়ে পড়া বন্ধ করতে সবচেয়ে বড় অস্ত্র হলোÑ ঘরে থাকা, ঘরে থাকা এবং ঘরে থাকা।
অনেক জায়গায় লোকজন লকডাউন মানছেন না অভিযোগ করে তিনি বলেন, হাটবাজারে এখনো অনেক জটলা দেখা যায়। এ সময় লকডাউন আরও কড়াকড়ি আরোপের জন্য সেনাবাহিনী ও আইনশৃৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানান জাহিদ মালেক। দেশে একদিনে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ আক্রান্তের সংখ্যা তুলে ধরে তিনি এ আহ্বান জানান। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, গত ২৪ ঘন্টায় দেশে ১৮২ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছে। মারা গেছেন আরও পাঁচজন। একদিনে আক্রান্তের এই সংখ্যা এই যাবৎ সর্বোচ্চ। এর আগে রবিবার দেশে সর্বোচ্চ ১৩৯ জন আক্রান্ত হয়েছেন। একদিনে সর্বাধিক ছয়জনের মৃত্যু হয়েছিল ১০ এপ্রিল। উল্লেখ্য, দেশের অর্ধেকেরও বেশি এলাকা এখন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত। মোট ৬৪ জেলার মধ্যে রবিবার পর্যন্ত ৩৮ জেলায় রোগী পাওয়া গেছে।






প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
25178 জন