দেশের বিভিন্ন স্থানে করোনা উপসর্গে মৃত্যু ৯ জনের
Published : Thursday, 9 April, 2020 at 12:00 AM, Update: 08.04.2020 9:49:20 PM
দিনকাল রিপোর্ট
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় করোনা উপসর্গে ২ জন, রংপুরের কাউনিয়ায় এক গৃহবধূ, গাজীপুরে চিকিৎসাকর্মী, মানিকগঞ্জের সাটুরিয়ায় এক বৃদ্ধ, পিরোজপুরের নাজিরপুরে তাবলিগ জামাত থেকে ফেরা এক বৃদ্ধ, কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া ঢাকা মেডিকেল ও শরীয়তপুরে  আইসোলেশনে থাকা ২ যুবকের মৃত্যু হয়েছে।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া : ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শ্বাসকষ্ট নিয়ে দুজন মৃত্যুবরণ করেছেন। গতকাল বুধবার দুপুরে জেলার নবীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ২০ বছর বয়সী এক যুবক এবং বাঞ্ছারামপুর উপজেলার রূপসদী ইউনিয়নের রূপসদী গ্রামের মধ্যপাড়ায় নিজ বাড়িতে ৫৭ বছর বয়সী এক ব্যক্তি মারা যান। করোনা ভাইরাস পরীার জন্য তাদের দুজনেরই নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। স্থানীয় ও বাঞ্ছারামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা গেছে, গতকাল বুধবার দুপুর দেড়টার দিকে বাঞ্ছারামপুর উপজেলার রূপসদী ইউনিয়নের রূপসদী গ্রামের মধ্যপাড়ায় নিজ বাড়িতে শ্বাসকষ্ট রোগে মারা যান ৫৭ বছর বয়সী এক ব্যক্তি। পরে খবর পেয়ে করোনা ভাইরাস পরীার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্তৃপ তার নমুনা সংগ্রহ করে। এ ব্যাপারে বাঞ্ছারামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. আল মামুন বলেন, রূপসদী গ্রামের ওই ব্যক্তি শ্বাসকষ্ট ও হার্টের রোগী ছিলেন। তার নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকায় পাঠানো হচ্ছে। অপরদিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সিভিল সার্জন ডা. মুহাম্মদ একরাম উল্লাহ বলেন, কুমিল্লা জেলার মুরাদনগর উপজেলার বলিঘর গ্রামের ২০ বছর বয়সী এক যুবক গতকাল বুধবার (০৮ এপ্রিল) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে প্রচন্ড শ্বাসকষ্ট নিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসেন। এরপর এক্স-রেসহ তার কিছু পরীা-নিরীা করানো হয়। পরীায় তার নিউমোনিয়ার লণ দেখা যায়। পরবর্তীতে তাকে ঢাকায় রেফার্ড করা হয়। ঢাকার যাওয়ার জন্য অ্যাম্বুলেন্সসহ সবকিছু  প্রস্তুত করার পর অ্যাম্বুলেন্সে উঠানোর আগে দুপুর ৩টার দিকে তার মৃত্যু হয়। তিনি বলেন, তার শরীরে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব ছিল কী না সেটি পরীার জন্য নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকায় পাঠানো হচ্ছে।
রংপুর : রংপুরের কাউনিয়ার হারাগাছ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনা উপসর্গ নিয়ে এক গৃহবধূ মারা গেছেন। গতকাল বুধবার সকালে তিনি মারা যান। এরপর তার শরীরের নমুনা সংগ্রহ করে রংপুর মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবরেটরিতে পাঠানো হয়েছে। এদিকে ওই নারীর সৎকারে অংশগ্রহণকারীদের হোম কোয়ারেন্টাইন এ রাখা হয়েছে। রংপুর সিভিল সার্জন হিরো কুমার রায় জানিয়েছেন, করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া ওই নারী উপজেলার হারাগাছ পৌরসভার মেনাজবাজার গোল্ডেন ঘাট এলাকার বাসিন্দা। ওই নারী কয়েকদিন ধরে জ্বর, সর্দি, কাশিতে ভুগছিলেন। মঙ্গলবার রাত থেকে গলাব্যথা এবং বুধবার সকালে ডায়রিয়া শুরু হলে তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসেন স্বজনরা। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তিনি আরো জানান, মৃত ওই নারী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন কি না তা পরীার জন্য তার নমুনা সংগ্রহ করে রংপুর মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়েছে। প্রতিবেদন পেলে তিনি করোনা আক্রান্ত ছিলেন কি না তা নিশ্চিত হওয়া যাবে। কাউনিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উলফৎ আরা বেগম জানান, গতকাল বুধবার সকালে মারা যাওয়া ওই নারীর সৎকার কাজে নিয়োজিত দুজনসহ পরিবারের অন্য সদস্যদের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।
গাজীপুর : গাজীপুরের কাপাসিয়ায় জ্বর ও ঠান্ডাজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে ২৭ বছর বয়সী যুবক সেলিম তার নিজ বাড়িতে মারা গেছেন। তিনি কাপাসিয়া উপজেলার টোক ইউনিয়নের উলুসাড়া গ্রামের সুরুজ্জামানের ছেলে। কাপাসিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আব্দুস সালাম সরকার জানান, সেলিম নারায়ণগঞ্জের একটি ওষুধের দোকানে চাকরি করতেন। প্রায় তিন সপ্তাহ আগে জ্বর ও ঠান্ডা নিয়ে সেখান থেকে পালিয়ে কাপাসিয়ার বাড়িতে চলে আসেন। মঙ্গলবার দিবাগত রাত একটার দিকে ওই যুবক তাদের নিজ বাড়িতে মারা যায়। স্বাস্থ্য বিভাগ বুধবার সকালে মৃত যুবক ও তার বাবা-মা, দুই ভাই ও এক বোনসহ পরিবারের মোট ৬ জনের নমুনা সংগ্রহ করেছে। গতকাল বুধবারই সংগ্রহ করা নমুনা ঢাকার আইইডিসিআর এ পাঠানো হয়েছে। নমুনা পরীার ফলাফল পেলে নিশ্চিত হওয়া যাবে ওই যুবক করোনা আক্রান্ত ছিলেন কি না। তার পরিবারের সকলে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকবে। তিনি আরও জানান, বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ওই যুবকের দাফন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর মতোই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রটোকল অনুযায়ী করা হবে। কাপাসিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোসা. ইসমত আরা জানান, নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। নমুনা পরীার রিপোর্ট পাওয়ার পর পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।  
মানিকগঞ্জ : মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া উপজেলার গোলড়া এলাকায় করোনা উপসর্গ নিয়ে এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল বুধবার সকালে নিজ বাড়িতে তিনি মারা যান। সাটুরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মামুন-উর রশীদ বলেন, তিনি দীর্ঘদিন ধরে সর্দি, কাশি ও হাঁপানি রোগে আক্রান্ত ছিলেন। সকাল ৭টার দিকে তিনি মারা যান। মৃত বৃদ্ধের নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআরে পাঠানো হয়েছে। সাটুরিয়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আশরাফুল আলম বলেন, আনোয়ার হোসেনের মৃত্যুর ঘটনায় সতকর্তা অবলম্বনের জন্য ওই বাড়ির আশপাশের তিনটি বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে।
পিরোজপুর : করোনা ভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে গতকাল বুধবার ভোরে পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলায় তাবলিগ জামাত থেকে ফেরা এক বৃদ্ধের (৭০) মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনার পর একটি লকডাউন করে দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। মৃত বৃদ্ধের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। উপজেলা প্রশাসন ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, ওই বৃদ্ধ চার মাস আগে বাড়ি থেকে তাবলিগে যান। এরপর তিনি দেশের বিভিন্ন স্থানে তাবলিগ জামাতের সঙ্গে ছিলেন। ১০ দিন আগে তিনি বাড়িতে ফেরেন। বাড়ি ফেরার তিন থেকে চার দিন পর তিনি জ্বর ও কাশিতে আক্রান্ত হন। এরপর থেকে তাকে বাড়িতে কোয়ারেন্টিনে রেখে পরিবারের সদস্যরা চিকিৎসা দেন। বুধবার সকাল ছয়টার দিকে তিনি মারা যান। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ ওবায়দুর রহমান বৃদ্ধের পরিবারের সদস্যদের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার পরামর্শ দেন এবং বৃদ্ধের বাড়িসহ পুরো গ্রামটি লকডাউন করে দেন। নাজিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরিএমও) সব্যসাচী মজুমদার বলেন, বৃদ্ধ করোনা ভাইরাসের লণ নিয়ে অসুস্থ হলেও তার পরিবারের লোকজন বিষয়টি জানাননি। গতকাল বুধবার দুপুরে বৃদ্ধের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। নমুনা ঢাকার রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানে (আইইডিসিআর) পাঠানো হবে। নাজিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ ওবায়দুর রহমান বলেন, ওই বৃদ্ধ তাবলিগ জামাত থেকে ফেরার পর হোম কোয়ারেন্টিনে ছিলেন। বুধবার সকালে তার মৃত্যুর খবর পেয়ে পুরো গ্রামটি লকডাউন করে দেয়া হয়েছে।
কুমিল্লা : কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে করোনা উপসর্গ নিয়ে বাবার বাড়িতে চিকিৎসা নিতে এসে হাজেরা বেগম (২৮) নামক এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। পরে তাকে তড়িঘড়ি করে স্বামীর বাড়িতে নিয়ে দাফন করা হয়। গতকাল বুধবার ভোরে তিনি জ্বর, ডায়রিয়া ও গলা ব্যথা নিয়ে মারা যান। জানা যায়, নাঙ্গলকোট পৌরসভার বাতুপাড়া কাঠালিয়াপাড়ার সিরাজ মিয়ার মেয়ে হাজেরা বেগমকে (৩৫) রায়কোট দণি ইউনিয়নের মালিপাড়া গ্রামের আবুল কালামের নিকট বিয়ে দেয়া হয়। দাম্পত্য জীবনে তাদের ৪ বছর বয়সী একমাত্র পুত্রসন্তান রয়েছে। হাজেরা বেগম স্বামীর বাড়িতে জ্বর, ডায়রিয়া ও গলা ব্যথায় আক্রান্ত হলে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়। অবস্থার অবনতি হলে মঙ্গলবার গভীর রাতে বাবার বাড়িতে চাচাতো ভাই পল্লী চিকিৎসক রাশেদুল ইসলামের কাছে নিয়ে আসা হয়। রাশেদুলকে চিকিৎসা দেয়ার পূর্বেই গতকাল বুধবার ভোরে হাজেরা বেগম মৃত্যুবরণ করেন। মারা যাওয়ার পরপরই নমুনা সংগ্রহ ছাড়াই তড়িঘড়ি করে তাকে স্বামীর বাড়ি নিয়ে দাফন করা হয়। পল্লী চিকিৎসক রাশেদুল ইসলাম জানান, হাজেরা বেগমের অবস্থা অবনতি হলে দ্রুত আমার কাছে নিয়ে আসা হয়। আমি চিকিৎসা শুরুর আগেই তিনি মারা যান। নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. দেবদাস দেব জানান, এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত আমাদের কাছে কোন তথ্য জানা নেই। কেউ আমাদের অবহিত করেননি। খোঁজখবর নেয়ার চেষ্টা করছি। নাঙ্গলকোট পৌরসভার মেয়র আবদুল মালেক ওই নারী করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
ঢাকা : ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের নতুন ভবনের নিচতলায় আইসোলেশন ওয়ার্ডে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। আইসোলেশনের ওয়ার্ড মাস্টার আবুল হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। গতকাল বুধবার দুপুরে ওই যুবক মারা গেছে।
শরীয়তপুর : শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে আইসোলেশনে থাকা এক যুবকের (৩৪ বছর) মৃত্যু হয়েছে। গতকাল বুধবার বিকেল ৩টার দিকে তার মৃত্যু হয়। এর আগে মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টায় সর্দি, জ্বর, শ্বাসকষ্ট ও কাশি নিয়ে ওই যুবক সদর হাসপাতালে এলে কর্তৃপরে পরামর্শে তাকে আইসোলেশনে রাখা হয়। ওই যুবক নড়িয়া উপজেলার ডিঙ্গামানিক ইউনিয়নের কলারগাঁও এলাকার বাসিন্দা। শরীয়তপুরের সিভিল সার্জন ডা. এস এম আব্দুল্লাহ আল মুরাদ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মঙ্গলবার দুপুরেই আইইডিসিআরের সঙ্গে যোগাযোগ করে ওই যুবকের নমুনা সংগ্রহ করে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। গতকাল বুধবার সকালে পরীার জন্য নমুনা ঢাকায় পাঠানো হয়। আজ বৃহস্পতিবার ফলাফল পাওয়ার পর নিশ্চিত হতে পারবো ওই যুবক করোনায় আক্রান্ত কি-না? এর আগে মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে ওই যুবক নড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আউটডোরে সর্দি, জ্বর, শ্বাসকষ্ট ও কাশি নিয়ে চিকিৎসা নিতে এলে সন্দেহজনক হওয়ায় তাকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে পাঠান নড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সফিকুল ইসলাম।












প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
25181 জন