ক্লিনিক হাসপাতাল চেম্বার বন্ধ রাখলে কঠোর ব্যবস্থা
Published : Saturday, 4 April, 2020 at 12:00 AM, Update: 03.04.2020 9:37:35 PM
দিনকাল রিপোর্ট
ক্লিনিক হাসপাতাল চেম্বার বন্ধ রাখলে কঠোর ব্যবস্থামহামারি করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে দেশে ডাক্তারদের প্রাইভেট চেম্বার, প্রাইভেট হাসপাতাল ও কিনিক বন্ধ থাকলে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। গতকাল শুক্রবার দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদফতরের জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) অনলাইন লাইভ ব্রিফিংয়ে যোগ দিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এ হুঁশিয়ারি দেন।
জাহিদ মালেক বলেন, ‘নার্স এবং ডাক্তার ভাইদের বলি আপনারা অনেক কাজ করেছেন, আপনারাই সৈনিক, আপনারাই এই সংক্রমণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছেন। কিন্তু আমরা ল্য করছি যে আমাদের কিছু প্রাইভেট হাসপাতালে কাজ কম হচ্ছে। চেম্বারগুলো অনেকাংশে বন্ধ আছে, আমরা সামাজিক মাধ্যমে জানতে পারছি। আমরা নিজেরাও দেখতে পারছি।’ এই সময়ে আপনাদের পিছপা হওয়াটা যুক্তিসংগত নয় জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘মানুষের পাশে দাঁড়ান, মানুষকে সেবা দিন। এটাই সময়। আমরা কিন্তু এটা ল্য করছি। পরবর্তী সময়ে এই বিষয়ে আমরা অবশ্যই যা যা ব্যবস্থা নেয়ার, আমরা কিন্তু সেই ব্যবস্থা নিতে পিছপা হবো না।’
তিনি আরও বলেন, ‘পরীার মাধ্যমে আমরা এই করোনাভাইরাস চিহ্নিত করে আস্তে আস্তে এটাকে নির্মূল করতে পারব। আমাদের কিটসের আপাতত কোনো সংকট নাই। কাজেই পরীা আপনারা চালিয়ে যাবেন।’
‘পরীার মাধ্যমে আমরা জানতে পারি কতগুলো ব্যক্তি সামাজিকভাবে সংক্রমিত হয়েছে। এটা খুব জরুরি’ বলেও জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী।
মানুষ এখনো পাড়া-মহল্লায় ঘুরছে- এ ব্যাপারে কী পদপে নেবেন? জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা যা যা পদপে নিয়েছি তা আপনারা জানেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আবারও ছুটি বাড়িয়ে দিয়েছেন এবং শহরে নজরদারি আরও বাড়িয়ে দিয়েছে। আমি আশা করবো যে লোকজন ঘরের ভেতরে থাকবে এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখবে।’ ‘বেশি বেশি করে পরীা করবে এবং পরীা করে নিজের অবস্থানটি উনি জেনে নেবেন। যার মাধ্যমে উনি নিজেও চিকিৎসা পাবেন এবং উনার পরিবার ও আশেপাশের লোকজনের মধ্যে করোনাভাইরাসটি ছড়াবেন না। এটিই সবচেয়ে বড় পদপে’ যোগ করেন জাহিদ মালেক।
দেশে করোনায় আক্রান্ত আরও ৫ জন শনাক্ত : মোট ৬১
দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও পাঁচজনের দেহে নভেল করোনাভাইরাস বা কভিড-১৯ রোগের সংক্রমণ শনাক্ত করা হয়েছে। এ নিয়ে দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৬১ জনে।
গতকাল শুক্রবার করোনাভাইরাস নিয়ে ভার্চুয়াল ব্রিফিংয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এ তথ্য জানান।
তিনি বলেন,  ‘করোনার পরীা-নিরীার জন্য কিটের সংকট নেই। রাজধানীসহ সারা দেশে নমুনা পরীার ল্যাবরেটরির সংখ্যা বৃদ্ধি করা হয়েছে।’
করোনা আক্রান্ত সন্দেহভাজন রোগীদের স্বপ্রণোদিত হয়ে বেশি বেশি করে নমুনা পরীা করতে সংশ্লিষ্ট ল্যাবরেটরিতে যোগাযোগের আহ্বান জানান মন্ত্রী। প্রয়োজন ছাড়া বাসাবাড়ি থেকে বের না হতে দেশবাসীকে অনুরোধ জানান তিনি।
পরে ব্রিফিংয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের ম্যানেজমেন্ট ইনফরমেশন সিস্টেম (এমআইএস) শাখার প থেকে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় (বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে শুক্রবার সকাল ৮টা পর্যন্ত) দেশে ২০-২২টি জেলা বাদে বাকি জেলাগুলোতে ৫১৩টি নমুনা পরীা করা হয়েছে। এর মধ্যে পাঁচটি নমুনা করোনা পজেটিভ হয়েছে।
ব্রিফিংয়ে জানানো হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত কারও মৃত্যু হয়নি, অর্থাৎ মৃতের সংখ্যা ৬ জনই রয়েছে। নতুন শনাক্ত ৫ জনসহ মোট আক্রান্ত ৬১ জনের মধ্যে এরই মধ্যে সেরে উঠেছেন ২৬ জন। আর চিকিৎসাধীন আছেন ২৯ জন। এদের মধ্যে হাসপাতালে ২২ জন এবং বাড়িতে পূর্ণ পর্যবেণে আছেন ৭ জন।




জন্স হপকিন্স ইউনিভার্সিটির সেন্টার ফর সিস্টেম সায়েন্সেস অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের (সিএসএসই) তথ্য অনুযায়ী, শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৫৩ হাজার ১৪৬ জনের। আর বিশ্বে এই ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০ লাখ ১৬ হাজার ১২৮ জনে। এদের মধ্যে ইতোমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২ লাখ ১১ হাজার ৬১৫ জন।







প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
25193 জন