বিএসএমএইউতে ভিড় করবেন না
বিএনপি নেতাকর্মীদের শান্ত থাকার আহবান মির্জা ফখরুলের
Published : Wednesday, 25 March, 2020 at 12:00 AM, Update: 24.03.2020 11:03:24 PM
দিনকাল রিপোর্ট
বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তিতে দেশবাসীসহ দলের নেতাকর্মীরা স্বস্তিবোধ করছে বলে জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। গতকাল মঙ্গলবার রাতে স্থায়ী কমিটির বৈঠকের পর তিনি এই প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন। মির্জা ফখরুল বলেন,  এটা (শর্তসাপেে মুক্তি) আমাদের কাছে বোধগম্য নয়। বোধগম্য নয় এজন্য যে, পরিবার যে আবেদনটা করেছিল তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য মুক্তি। যাই হোক তারপরেও বিএনপি নেতাকর্মীরা, দেশের মানুষ স্বস্তিবোধ করছেন দীর্ঘকাল পরে আজকে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া তার যেটা প্রাপ্য আইনগতভাবে, সাংবিধানিকভাবে এই সাময়িকভাবে হলেও মুক্তি পেয়েছেন। আমরা আশা করি, তিনি ঠিক সময়মতোই কারাগার থেকে বেরুতে পারবেন।
নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বিএনপি মহাসচিব বলেন,  আমি দেশের মানুষ ও নেতাকর্মীদের কাছে এই আবেদন রাখতে চাই, দীর্ঘদিন ধরে আপনারা আন্দোলন করেছেন, সংগ্রাম করেছেন দেশনেত্রী গণতন্ত্রের মাতা বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য। মুক্তি পেলে সবাই আবেগে আপ্লুত হবে তাঁকে এক নজর দেখার জন্য, তার কাছে যাওয়ার জন্য চেষ্টা করবেন। কিন্তু আজকে সমগ্র বিশ্বে ভয়ংকর মহামারিতে ইতিমধ্যে হাজার হাজার মানুষ মারা গেছেন এবং লাখ লাখ মানুষ যারা আক্রান্ত হয়েছেন, বেশিরভাগ দেশে লকডাউন করা হয়েছে। এই অবস্থার প্রেেিত উনি যদি বেরিয়ে আসেন আমাদের নেতাকর্মী সবাইকে আমরা আবেগের বশবর্তী না হয়ে ম্যাডামের স্বাস্থ্যের জন্য, ম্যাডামের জীবনের জন্য, অন্যান্য সকলের নিরাপত্তার জন্য আমরা শান্ত থাকতে এবং দূরে থাকতে আহবান করছি। পিজি হাসপাতালের সামনে তারা জমায়েত না হোন, তারা সমাবেশ না করেন।
তিনি বলেন, আমি আবারো বলছি, পিজি হাসপাতালের সামনে এবং ম্যাডামের বাসার সামনে দয়া করে কেউ ভিড় করবেন না। এতে ম্যাডামের তি হওয়ার সম্ভাবনা আছে। আপনারা জানেন যে, উনি অত্যন্ত অসুস্থ, উনি ডায়াবেটিস রোগী, আর্থারাইটিসে ভুগছেন, ৭৫ বছর বয়স, উনার এজমারও সমস্যা আছে। এসব সমস্যা করোনা ভাইরাসের জন্য মারাত্মাক সমস্যা অর্থাৎ সবচেয়ে ভারগানেবল হয়ে যায়। আবারো অনুরোধ থাকবে নেতাকর্মীর প্রতি, আপনারা স্বস্তি পেয়েছেন। আমাদেরও দায়িত্বশীল হতে হবে।
উন্নত চিকিৎসার বিষয়ে আপনাদের চিন্তা জানতে চাইলে বিএনপি মহাসচিব বলেন, আপনারা জানেন যে, ম্যাডামের ব্যক্তিগত চিকিৎসকরা চিকিৎসা আগে থেকে করেছেন, উনারা আছেন। আমরা তাদের সাথে যোগাযোগ করছি এবং তাঁকে সুষ্ঠু চিকিৎসার ব্যবস্থা বাসায় শুরু করা যায় যেটাও আমরা ব্যবস্থা রাখছি। ম্যাডাম হাসপাতালে চিকিৎসা নেবেন না বাসায় চিকিৎসা নেবেন সেটা তাঁর সিদ্ধান্তের ওপর নির্ভর করবে। সেটা এখন আমরা জানি না। তার সাথে আমরা এখনো যোগাযোগ করতে পারি নাই।




বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তিতে আপনাদের অনুভূতি কিÑ জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা কিছুটা আবেগ আপ্লুত তো বটেই, কিছুটা স্বস্তিও বোধ করছি। আবার কিছু আমরা আতঙ্কিতবোধ করছি এই  ভয়ঙ্কর সময়ে তাঁর এই মুক্তি তার কোনো তি না ঘটে। বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির সিদ্ধান্ত গণমাধ্যমে আসার পর সন্ধ্যায় গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে দলের নীতিনির্ধারণী ফোরাম জাতীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।
লন্ডন থেকে স্কাইপেতে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সভাপতিত্বে বৈঠকে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, সেলিমা রহমান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া বৈঠকে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন, অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদীন, ডা. অধ্যাপক এজেডএম জাহিদ হোসেন ও চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুসও উপস্থিত ছিলেন।






প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
25106 জন