করোনা আতঙ্কে ভারতের কারাগার রণক্ষেত্র : পুলিশের গুলিতে নিহত ১
Published : Sunday, 22 March, 2020 at 12:00 AM, Update: 21.03.2020 11:25:45 PM
দিনকাল ডেস্ক
করোনা ভাইরাস আতঙ্কের জেরে ভারতের একটি কারাগারে আগুন দিয়েছে বন্দিরা। শুধু তাই নয়, প্রাচীর টপকে পালানোর চেষ্টা করেছে তারা। ভারতীয় গণমাধ্যম সূত্রের খবর, গতকাল শনিবার বন্দি ও পুলিশের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। এ সময় পুলিশের গুলিতে এক বন্দি নিহত হয়েছে। এছাড়া আরও ৯ জন আহত হয়েছে। তবে কারা- কর্তৃপক্ষের কর্মকর্তারা গুলি চালানোর কথা অস্বীকার করেছেন। তারা বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে লাঠিচার্জ করা হয়। জানা গেছে, কিছুদিন আগেই রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে ১০ বছরের বেশি সময় ধরে থাকা বন্দিদের প্যারোলে মুক্তি দেয়ার কথা জানানো হয়েছিল। করোনা আতঙ্কের মধ্যেই সেই তালিকা প্রকাশ করা হচ্ছে এমন খবর পেতেই ট্রায়ালে থাকা বন্দিরা গতকাল শনিবার বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে। সকাল থেকেই উত্তপ্ত হয়ে উঠে দমদম কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার। পুলিশ-বন্দি সংঘর্ষে রণক্ষেত্রে পরিণত হয় কারাগার। কারাগারের একটা বড় অংশের দখল নিয়ে নেয় বন্দিরা। জেলের ভেতরে আগুন লাগানোর পাশাপাশি মই এনে প্রাচীর টপকানোর চেষ্টা করে কোনো কোনো বন্দি। তবে সংঘর্ষের সময় কেউ পালিয়েছে কি না, তা এখনও স্পষ্ট নয়। জেলের যে অংশের দখল নিয়েছে বন্দিরা, সেখানে কাঁদানে গ্যাসের শেল নিক্ষেপ হচ্ছে বাইরে থেকে। সূত্রের বরাতে আনন্দবাজার পত্রিকা জানায়, বন্দিদের একাংশ তালা ভেঙে দা-কুড়ালের মতো কিছু ধারালো অস্ত্র জোগাড় করেছে। বাহিনী ঢুকলে সেই সব অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে হামলা চালানো হতে পারে বলে আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। ওয়ার্ডের মধ্যে বন্দিরা একটি গ্যাস সিলিন্ডারও নিয়ে গেছে বলে জেল সূত্রে জানা গেছে। শুধু তাই নয়, জেলের ওয়ার্ডে আগুনও ধরিয়ে দিয়েছে বন্দিরা। ঘটনাস্থলে দমকলের একাধিক ইঞ্জিন পৌঁছেছে। বন্দিদের একাংশের সঙ্গে কথা বলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করেন কারা-দফতরের কর্মকর্তারা। ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে না পড়ে, সে জন্য সাময়িকভাবে পরিবারের লোকজনের সঙ্গে বন্দিদের সাক্ষাৎ বন্ধ করে দেয় রাজ্য কারা দফতর। এই সিদ্ধান্ত ঘিরেই সংঘর্ষ শুরু হয়।






প্রথম পাতা'র আরও খবর
অনলাইন জরিপ

করোনা মোকাবিলায় দলমত নির্বিশেষে সকলকে এক হয়ে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছে বিএনপি। আপনি কি সমর্থন করেন?
 হ্যাঁ   না   মন্তব্য নেই
দিনকাল ই-পেপার
পুরনো সংখ্যা
আজকের মোট পাঠক
25172 জন